kids-banner

শিশুদের জন্য কেন কোডিং?

বর্তমানের বদ্ধ এই জীবনের কারণে শিশুদের মানসিক বিকাশ ব্যাহত হচ্ছে, যৌক্তিক ক্ষমতা লোপ পাচ্ছে, সমস্যা সমাধানের ক্ষমতা লোপ পাচ্ছে এবং শিশুদের মাঝেও হতাশা দেখা দিচ্ছে। এসব বিষয় নিয়ে অভিভাবকগণ অনেক বেশি চিন্তিত। কিন্তু চিন্তা নয় এই পরিস্থিতির সমাধান নিয়ে ভাবতে হবে। কিভাবে তাদের মানসিক বিকাশ ঘটবে সে বিষয়ে আমার মনে হয় আপনার আজকে থেকেই সমাধান খোঁজা উচিত। আর এই সমাধান হতে পারে শিশুদের কোডিং শেখানো। নতুন একটা দক্ষতা গড়ার পাশাপাশি কোডিং পরোক্ষ ভাবে শিশুর মাঝে গড়ে তোলে: সমস্যা সমাধানের ক্ষমতা, বৃদ্ধি পায় তাদের সৃষ্টিশীলতা এবং তারা সব ধরনের সমস্যা সমাধানে আত্মবিশ্বাসী হয়ে ওঠে। পাশাপাশি এই দ্রুত গতির জীবনে এগিয়ে যেতে হলে প্রস্তুতি নিতে হবে আগে থেকেই। এই মিশনকে সামনে রেখেই Creative IT Institute নিয়ে এসেছে Coding for Kids কোর্সটি।

কোন বয়সের জন্য “কোডিং” বিষয়ক ট্রেনিংটি প্রযোজ্য?

৭ থেকে শুরু করে ১৭ বছর বয়সী সকলেই কোর্সটি করতে পারবে। বয়স অনুসারে শিশুদের তিন ভাগে ভাগ করা হয়েছে। এবং সেই অনুযায়ী আমরা কোর্স মডিউলটি ডেভেলপ করেছি। যাদের জন্য কোর্সটি সাজানো হয়েছেঃ

  • ১ম ভাগে থাকবে ৭ থেকে ৯ বছর বয়সী যারা।
  • ২য় ভাগে ১০ থেকে ১৩ বছর বয়সীরা।
  • ৩য় ভাগে থাকবে ১৪ থেকে ১৭ বছর বয়সীরা।

এর মানে এই নয় যে কেউ কম শিখবে আবার কেউ বেশি শিখবে। বয়স ভেদে মডিউলে কিছুটা পার্থক্য করা হয়েছে যাতে সব বয়সী শিশুরা খুব সহজে ও আনন্দ নিয়ে কোডিং শিখতে পারে।

কোডিং শেখা কী সহজ হবে তাদের জন্য?

যেহেতু মডিউলটি শিশুদের কথা মাথায় রেখেই তৈরি করা হয়েছে। প্রশিক্ষণটি তাদের কাছে অনেকটা গেমের মতো মনে হবে। পুরো বিষয়টি তারা আনন্দের সাথেই শিখতে পারবে। আর কোনো রকম সমস্যা হলে তো আমাদের মেন্টররা আছেন। তারা শিশুদের সমস্যার সমাধান দিবেন শিশুদের মত করেই। আমাদের মেন্টররা প্রথমেই শিশুদের সাথে একটা বন্ধুত্বের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। ফলে কোর্স চলাকালীন সময় যে কোনো রকম সমস্যায় পড়লে শিশুরা সহজেই তাদের মেন্টরকে জিজ্ঞেস করতে পারবে। এতে তাদের শেখার আগ্রহ বেড়ে যায় এবং তাদের শেখার মাঝে কোনো গ্যাপ থাকে না।

পড়াশুনার পাশাপাশি এই বিষয়ে ট্রেনিং নিলে পড়াশুনার ব্যাঘাত ঘটবে কী না?

মহামারির কারণে যেহেতু স্কুল কলেজ বন্ধ, শিশুরা যথেষ্ট পরিমাণে পড়াশুনা করার পরেও তাদের হাতে অনেক সময় থেকে যায়। এই সময়ের সঠিক ব্যবহার এখনি সম্ভব। কোডিং শেখার মাধ্যমে তারা স্কিল ডেভেলপমেন্টের পাশাপাশি আইটি ক্ষেত্রের নতুন নতুন দিক উন্মোচন করতে পারবে। ফলে এখন পড়াশুনা করার পাশাপাশি এই বিষয়ে প্রশিক্ষণ শিশুদের জন্য কোনো রকম ক্ষতির কারণ হবে না। ববং তাদের পড়াশুনায় পরোক্ষ ভাবে ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে প্রশিক্ষণটি। যেমন কোডিং শিশুদের

  • নতুন একটি গাণিতিক ভাষা শেখাবে,
  • তাদের সৃষ্টিশীলতা কে উৎসাহিত করবে,
  • সব ধরনের সমস্যা সমাধানে আত্মবিশ্বাসী করে তুলবে
  • গণিতের ভিত্তি শক্ত করবে
  • একাডেমিক রাইটিং স্কিল’ বা লেখার দক্ষতা বাড়াবে
  • ধৈর্যশীল ও অধ্যবসায়ী হতে সাহায্য করবেে
  • তারা জানবে কীভাবে বিভিন্ন জিনিসকে সংগঠিত ও শ্রেণিকরণ করতে হয়
  • একটা সমস্যা সমাধান করতে গিয়ে সহজে সফল না হলেও সে অন্যভাবে সেটি সমাধানের উপায় খুঁজে বের করার চেষ্টা করবে

কি উপায়ে ট্রেনিংটি দেওয়া হবে?

প্রশিক্ষণ হবে সম্পূর্ণ অনলাইনে। অনলাইনে হওয়ার কারণে অভিভাবকরাও নিশ্চিন্ত থাকতে পারবে। অনলাইনে ট্রেনিং হলেও মডিউল মানসম্মত এবং ট্রেইনার থাকবে বিশ্বমানের। আমাদের মোট ক্লাস সংখ্যা ২০টি যেখানে আমরা পুরো ট্রেইনিংটি ২ মাসের মধ্যে সম্পন্ন করবো। সপ্তাহে ৩ দিন এবং প্রতিদিন ১.৫ ঘন্টা করে ক্লাস হবে। প্রতিটি ব্যাচে ২৫ জন শিক্ষার্থী থাকবে এবং শুরুতে আমরা ১০ টি ব্যাচ নিয়ে দেশব্যাপী অনলাইনে ট্রেইনিংটি প্রদান করবো। ডিজিটালী ইন্টারনেট সংযোগের মাধ্যমেই যেকেউ আমাদের অনলাইন প্লাটফর্মে যুক্ত হয়ে কোর্সটি করতে পারবে।

যাদের নির্দিষ্ট ডিভাইস ( ল্যাপটপ/ ডেস্কটপ) নেই তারা কী মোবাইলে কাজ করতে পারবে?

কোর্সটি সবার কথা চিন্তা করেই তৈরি করা হয়েছে ফলে যাদের ল্যাপটপ/ ডেস্কটপ নেই তারা চাইলে মোবাইল ফোন ব্যবহারের মাধ্যমে ইন্টারনেট সংযোগ থাকলেই কোর্সটি করতে পারবেন।

এই নির্দিষ্ট কোর্সে কী কী শেখানো হবে?

বর্তমানের প্রযুক্তি নির্ভর যুগে শিশুরাও অনেক দিক থেকে এগিয়ে যাচ্ছে। অল্প বয়সেই প্রচুর টেকনলজি তাদের হাতের মুঠোয় চলে এসেছে। শুধু তাই নয় কোডিং থেকে শুরু করে রবোটিক্স সব ক্ষেত্রেই শিশুদের সাফল্য গল্প প্রায়ই আমরা শুনে থাকি। এর মানে এ যুগের শিশুরা কিন্তু প্রস্তুত যে কোন ধরণের চ্যালেঞ্জ নেওয়ার জন্য। আমাদের কোর্সটিও এ বিষয়গুলোকে বিবেচনায় নিয়ে সাজানো হয়েছে। কোর্সে যা যা থাকবেঃ

  • Introduction to the course
  • Drag & Drop Learning
  • Sequencing
  • Base of Programming
  • Do not repeat
  • Looping
  • More of Logic

স্কিল ডেভেলপমেন্টের পাশপাশি শিশুদের বিকাশে আর কিভাবে সহায়তা করবে?

প্রাথমিক পর্যায় থেকেই কোডিং বা প্রোগ্রামিং শেখানো প্রযুক্তির যুগে রীতিমতো অবশ্যকরণীয় বিষয়। শিশুরা এতে আনন্দের সঙ্গে অনেক কঠিন বিষয় শিখে নিতে পারে, যা তাকে আধুনিক প্রযুক্তি নির্ভর সমাজে একজন দক্ষ জনশক্তিতে রূপান্তর করবে। যা তাদের মানসিক বিকাশকে ত্বরান্বিত করবে পাশাপাশি তাদের নতুন যুগের সাথে তাল মেলাতে সাহায্য করবে। কোর্সটি শিশুদের জন্য কেবল একটি মৌলিক জীবন দক্ষতা হিসেবে বিবেচিত হবেনা, সামনে সরকার প্রাথমিক পর্যায় থেকেই ICT বিষয়টিকে পাঠ্য বিষয় হিসেবে রাখবে। ফলে কোর্সটি করা থাকলে শিশুরা সহজেই বিষয়টিকে আয়ত্ত করতে পারবে।

কিভাবে রেজিস্ট্রেশন করবো?

রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করতে হবে। এরপর একটি ফর্ম সামনে আসবে, ফর্মটি পূরণ করার মাধ্যমে আপনার রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করুন। যেহেতু ক্রিয়েটিভ আইটি প্রথম এই উদ্যোগটি নিয়েছে এবং এই বিশেষ কোর্সটির ফি নির্ধারণ করা হয়েছে ১০০০০ টাকা। তবে আর জে কিবরিয়ার ভিউয়ারদের জন্য আমরা এই কোর্সটিতে স্কলারশিপ ঘোষণা করেছি। তাই কোর্সটি ভর্তি হতে রেজিস্ট্রেশন ফি বাবদ ২০০০ টাকা পরিশোধ করতে হবে। পেমেন্টসহ অন্যান্য বিষয়াদি সম্পর্কে আমাদের টিম খুব শীঘ্রই আপনার সাথে যোগাযোগ করবে।

পেমেন্ট কিভাবে করবো?

উপরে উল্লেখিত লিংকে রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন হলে এরপর আপনি পেমেন্ট সম্পন্ন করতে পারবেন। পেমেন্ট করার ক্ষেত্রে অবশ্যই নাম্বারগুলো যাচাই করে নিবেন। উল্লেখিত নাম্বার ব্যতীত অন্য কোন নাম্বারে পেমেন্ট না করার অনুরোধ রইল। উল্লেখিত নাম্বার ছাড়া অন্য নাম্বারে ভুলবশত পেমেন্ট করে ফেললে এই বিষয়ে কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না।

পেমেন্ট আপনি সহজেই করতে পারেন বিকাশ অথবা রকেটের মাধ্যমে। এই বিষয়ে জটিলতায় পড়লে অপেক্ষা করুন। আমাদের টিম খুব শীঘ্রই আপনাদের সাথে যোগাযোগ করবে।
Bkash: (Merchant Account number) 01990779780, 01990779766
Rocket: 019907797667

এছাড়া এই বিষয়ে আমাদের টিমের সহযোগিতা পেতে যোগাযোগ করতে পারেনঃ ০১৬২৪৬৬৬০০০, ০১৯৬৬১৭৭১৭৭ অথবা ০১৬২৪৮৮৮৪৪৪ নাম্বারে। ধন্যবাদ।